সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / বগুড়ার খবর / অবশেষে টিকা নিলেন আতংকিত চরবাসী

অবশেষে টিকা নিলেন আতংকিত চরবাসী

সাহাদত জামান, প্রতিনিধি সারিয়াকান্দিঃ বগুড়া সারিয়াকান্দিতে আতংকিত সেই চরবাসীরা গতকাল সোমবার টিকা নিয়েছেন। আগে টিকা নিতে না পেরে অনেকেই দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
উপজেলার সারিয়াকান্দি ইউনিয়নের চালুয়াবাড়ী ইউনিয়নে গিয়ে দেখা যায় সকাল থেকেই পরিষদে অসংখ্য নারী পুরুষ লাইনে অপেক্ষা করছেন টিকা নিতে। তাদের মধ্যে মহিলাদের উপস্হিতি ছিল সর্বাধিক। উপযুক্ত স্বাস্হ্যবিধি মেনে তারা স্বতঃস্ফূর্তভাবে টিকা গ্রহণ করেছেন। বিভিন্ন গ্রাম হতে খেয়ার নৌকা বা রিজার্ভ নৌকা নিয়ে দলবেঁধে আসেন টিকা নিতে।
চালুয়াবাড়ী শিমুলতাইড় গ্রামের ভোলা শেখ বলেন, হামাগিরে গ্রামত গুজব উঠছিল টিকে নিলেই হামরা মরে যামু। কিন্তু সারাদেশের মানুষের টিকে নেওয়ার খবর শুনে হামি টিকে নিবের আচ্চিলেম। আজও টিকে নিবের পালেম না। টিকে শ্যাষ হয়া গেছে, দেরীতে আসার জন্য টিকে নিবের পালেম না।
খাটেবাড়ী চরের রুপালি বেগম বলেন, সকালে আচ্চিলেম টিকে নিবের। নাইনত থাকতেই টিকে শ্যাষ হয়া গেছে। তবে হামার নাম চেয়ারম্যান নিস্টি করে নিচে। পরে টিকে আসলেই আগে হামাক দিবি। আগে টিকা নেননি কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, হামাগিরে গ্রামত গুজব উঠছিল টিকে দিয়ে সরকার হামাগিরেক মারে ফেলবি। তাই টিকে নেইনি। পরে মিটিং থাকে শুনে ভুল বুজতে পারে আজ টিকে নিবের আচ্চিলেম।
একই ইউনিয়নের চরদলিকার আমিরন বেওয়া জানান, ভয়ে হামরা আগে টিকে নিছিলেম না। চেয়ারম্যানরা গ্রামত মিটিং করার পর আজ হামরা নৌকা রিজাব করে টিকে নিবের আচ্চি।
সংরক্ষিত আসনের মহিলা মেম্বার স্বপ্না বেগম জানান, গত কয়েকদিন ধরে গ্রামের প্রতিটি বাড়ি বাড়ি গিয়ে আমি লোকজনদের টিকা নিতে পরামর্শ দিয়েছি। এজন্য আজ লোকজন স্বতঃস্ফূর্তভাবে টিকা নিতে এসেছেন।
সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শওকত আলী জানান, চরের অসচেতন লোকজনদের মাঝে টিকা নিতে একপ্রকার ভীতি কাজ করছিল। প্রতিটি গ্রামে এবং বাজারে সচেতনতামূলক মিটিং করার পর আজ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অনেক লোকজন টিকা নিতে এসেছেন। তাদের সুশৃঙ্খল ভাবে টিকা দেয়া হয়েছে। তবে প্রায় ৪ শত জনের বেশি মানুষ টিকা নিতে এসে না পেয়ে ফেরৎ গেছেন।
চালুয়াবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ কেন্দ্রের স্বাস্থ্য সহকারী আমিনুল ইসলাম জানান, দুপুরের আগেই এই কেন্দের অবশিষ্ট ২ শত ৭২ টি টিকা প্রদান করা হয়েছে।
সারিয়াকান্দিতে দায়িত্বে থাকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট প্রদ্যুৎ কুমার চাকি জানিয়েছেন, গত ৭ আগষ্ট উপজেলার প্রায় সবকটি কেন্দ্রে শতভাগ টিকা দেওয়া হয়েছে। কয়েকটি কেন্দ্রে মানুষের নেগেটিভ গুজবের জন্য টিকা কম গ্রহণ করেছে। আজ সেইসব কেন্দ্রে দুপুরের আগেই শতভাগ টিকা পুশ করা হয়েছে।
সারিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহমুদুর রশিদ বলেন, দুর্গম চরের লোকজনও এখন করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন হয়েছেন। যেসব লোকজন টিকা নিতে এসে ফেরৎ গেছেন তাদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা প্রদান করা হবে।
এ বিষয়ে কথা বলতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রাসেল মিয়া আজকের পত্রিকাকে বলেন, যেসব এলাকাগুলোতে টিকা নিতে লোকজন অনাগ্রহ প্রকাশ করেছিল। সেইসব এলাকাগুলোতে আজ টিকাদানের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছিল।

Check Also

সারিয়াকান্দির নয়া ইউএনও’র সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়

বগুড়ায় সারিয়াকান্দি উপজেলার নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রেজাউল করিমের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন আমরা মুক্তিযোদ্ধার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

9 − 6 =