সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / বগুড়ার খবর / আদমদীঘিতে সহকারী অধ্যাপক রবিউল ইসলাম রবীন উপাধ্যক্ষ পদে পরীক্ষা দিতে পারলেন না

আদমদীঘিতে সহকারী অধ্যাপক রবিউল ইসলাম রবীন উপাধ্যক্ষ পদে পরীক্ষা দিতে পারলেন না

মো: আবু বকর সিদ্দিক বক্কর,আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি:
বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার পৌর শহরের অবস্থিত বীর বিক্রম শহীদ লেঃ আহসানুল হক ডিগ্রি কলেজে আজ সোমবার দীর্ঘ ২২ বছর পর আদমদীঘি উপজেলা হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়েছে ’উপাধ্যক্ষ’ পদে পরীক্ষা। সেই পদে দরখাস্ত করেছিলেন উক্ত কলেজের সহকারী অধ্যাপক, দুই বারের নির্বাচিত শিক্ষক প্রতিনিধি, উপজেলা কলেজ শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও সাংবাদিক রবিউল ইসলাম রবীন। কিন্তু আজকের এই পরীক্ষায় তাকে পরীক্ষা দিতে দেওয়া হচ্ছে না। কারন পরীক্ষার দেওয়ার জন্য ইন্টারভিউ কার্ড তিনি পাননি। পরীক্ষায় দিতে না পারায় অভিমানে তিনি আদমদীঘিতে বঙ্গবন্ধু মুর‌্যালে পরীক্ষা চলাকালীন সময় অবস্থান ধর্মঘট করেছেন।
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি ও আদেশ থাকার পরও ওই কলেজের অধ্যক্ষ উক্ত ’উপাধ্যক্ষ’ পদটি দীর্ঘ ২২ বছর রহস্যজনক কারণে নিয়োগ দেননি। যদিও দুইবার পেপারে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন। সেই বিজ্ঞপ্তি হিসেবে রবিউল ইসলাম রবীন উক্ত পদে দরখাস্ত্ করেন। এই পদে তার দরখাস্ত্ করার যোগ্যতার কাগজ ও আবেদন পত্রের সাথে সংযুক্ত করে দেন। রোবাবার উক্ত বিষয়টি তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে মৌখিক ভাবে জানিয়েছেন। এ বিষয়ে সহকারি অধ্যাপক রবিউল ইসলাম রবিনের সাথে মুঠোফোনে বলেন, আমি দরখাস্ত করার সময় অধ্যক্ষ মহাদয় কে বিস্তারিত জানিয়ে আবেদন করেছিলাম। তিনি বলেছিলেন, সব ঠিক আছে, আপনে আবেদন করেন। সোমবার অধ্যক্ষ সাহেব কে বিষয়টি জানালে তিনি সঠিক কোন ব্যাখা দিতে পারেন নি। মুল বিষয়টি হলো, তাঁর তো চাকুরিই নাই। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় তাঁকে দর্শনের শিক্ষক হিসেবে চাকুরীর মেয়াদ বাড়িয়েছেন। তার তো আজকের পরীক্ষা নেওয়ারই এখতিয়ার নাই। তিনি তিনটি তৃতীয় বিভাগ নিয়ে অধ্যক্ষের চাকুরি করছেন। আমি তার প্রতিহিংসার স্বীকার। আমি বিষয়টি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীর দৃষ্টি আর্কষণ করছি এবং আইনের আশ্রয় নেব। ওই কলেজের অধ্যক্ষ আসাদুল হক বেলালের সাথে একাধিক বার মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। কলেজের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদুর রহমান পিন্টু বলেন, সর্বশেষ ২০১৯ সালের নিয়োগ বিধি মালা অনুযায়ী ৩য় শ্রেনীর থাকায় তার আবেদন বাতিল করা হয়েছে। তবে আবেদন বাতিল সংক্রান্ত কোন চিঠি দেওয়া হয়েছে কিনা আমার জানা নেই।

Check Also

সারিয়াকান্দির নয়া ইউএনও’র সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়

বগুড়ায় সারিয়াকান্দি উপজেলার নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রেজাউল করিমের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন আমরা মুক্তিযোদ্ধার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five − two =