সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / বগুড়ার খবর / ইউএনও’র ফোন পেয়ে বাসার কার্নিশ থেকে পাখির ছানা উদ্ধার করলো পাখি প্রাণ ইমরান

ইউএনও’র ফোন পেয়ে বাসার কার্নিশ থেকে পাখির ছানা উদ্ধার করলো পাখি প্রাণ ইমরান

বাঙালি বার্তা ডেস্কঃ যেখানে মানুষের প্রতি মানুষের ভালোবাসা,সমাজের প্রতি সামাজিক দায়বদ্ধতা সবই প্রায় উপেক্ষিত  সেখানে পাখির প্রতি ভালোবসার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বাইগুনি গ্রামের শিক্ষিত তরুণ ইমরান এইচ মন্ডল। তিনি পাখি প্রাণ ইমরান নামে পরিচিতি লাভ করেছেন। কত কয়েক বছর আগে পাখিদের নিরাপদ আবাস্থল গড়তে শুরু করেন পরিবেশ উন্নয়ন পরিবার নামক একটি সামাজিক সংগঠন।যার মাধ্যমে ইমরান বাইগুনী সহ পার্শ্ববর্তী সোনাতলার বিভিন্ন স্থানে গড়ে তুলেছে পাখির অভয়ারণ্য। এরই ধারাবাহিকতায় অদ্যই দুপুরে সোনাতলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন তার সরকারি বাসভবনের কার্নিশে বাসা বাধা পাখির ছানাদের কষ্টের কথা জানিয়ে পাখির ছানাগুলোকে নিরাপদ আশ্রয় দেয়ার উদ্দেশ্য পাখি প্রাণ ইমরানের সহযোগিতা চান। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন জানান ” তাঁর বাসার কার্নিশে একটি চড়ুই পাখি বাসা বেধে সেখানে কয়েকটি বাচ্ছা দিয়েছে। কিন্তু আজ দুপুরে হঠাত মা পাখি ও বাবা পাখি বৈদ্যুতিক পাখার সাথে ধাক্কা লেগে আহত হয়। অনেক চেষ্টা করেও পাখি দুটোকে বাঁচাতে পারিনি। এমতবস্থায় বাসায় যেহেতু পাখির ছোট্ট ছোট্ট কয়েকটি ছানা আছে তাঁদের বাচানোটা জরুরী মনে করি। যেহেতু ইমরান পাখিদের নিরাপত্তায় কাজ করছে সেহেতু মুঠোফোনের মাধ্যমে তাকে বিষয়টি জানাই। যেন সে কিছু একটা ব্যাবস্থা করে পাখির ছানা গুলোকে রক্ষা করে। পরে ইমরান বিকালে এসে আমার বাসার কার্নিশ থেকে ছানা গুলোকে উদ্ধার করে নিরাপদে নিয়ে যায়।”

এ বিষয়ে ইমরান বলেন ” মানুষের যেমন কষ্ট আছে আছে, পাখিদেরও তেমনি কষ্ট আছে। আমি চাই সবাই ভালো থাকুক। ইউএনও স্যারের ফোনে পাখির ছানাদের কষ্টের কথা শুনে দ্রুত ছুটে যাই এবং বাসায় থাকা ৪ টি ছানা কে উদ্ধার করে নিরাপদ আশ্রয়ে রেখেছি। তবে ছানাগুলোর বয়স অনেক কম হওয়ায় বেশ ঝুকিতে আছে। তবুও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি তাঁদের প্রাণ বাঁচানোর।

Check Also

সারিয়াকান্দির নয়া ইউএনও’র সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়

বগুড়ায় সারিয়াকান্দি উপজেলার নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রেজাউল করিমের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন আমরা মুক্তিযোদ্ধার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

sixteen − 11 =