সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / বগুড়ার খবর / একজন ছাইফুল ইসলাম ও সোনাতলার মধুপুর ইউনিয়ন

একজন ছাইফুল ইসলাম ও সোনাতলার মধুপুর ইউনিয়ন

স্টাফ রিপোর্টার: ছাইফুল ইসলাম। প্রান্তিক জনপদ বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার মধুপুর ইউনিয়নের সম্ভান্ত পরিবারের সন্তান তিনি। পারিবারিকসূত্রেই তিনি পেয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান দাদা ও মামার সান্নিধ্য। নেতৃত্বের গুণাবলী তিনি তাঁদের কাছ থেকেই অর্জন করেছিলেন ছোটবেলা থেকেই। একজন সাধারণ মানুষ হিসেবে সবসময় তিনি ভেবেছেন সাধারণ মানুষের কথা। ব্যথিত হয়েছেন সাধারণ মানুষের সন্তানদের শিক্ষা লাভের ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অপ্রতুলতায়, ব্যথিত হয়েছেন অটিস্টিক শিশু-কিশোরদের মানসম্পন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অপ্রতুলতায়। নদীভাঙ্গনকবলিত মানুষের নানাবিধ সমস্যা তাঁর বিবেকবোধকে তাড়িত করেছে সবসময়। বিবেকবোধের সে তাড়নায় তিনি প্রতিষ্ঠা করেছেন পূর্ব তেকানী ইয়াকুবিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়, তেকানী আব্দুল মান্নান অটিজম বিদ্যালয়, পশ্চিম তেকানী ইবতেদায়ী মাদ্রাসা। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও আদর্শ মানুষকে জানাতে প্রতিষ্ঠা করেছেন জাতির জনক শিক্ষা-গবেষণা পাঠাগার। সাধ্য অনুযায়ী নির্মাণ করেছেন কয়েকটি গ্রামীণ রাস্তা, সার্বিক সহায়তা করেছেন সোনাতলা থানা গেট নির্মাণে। সাধ্য অনুযায়ী আর্থিক সহায়তা দিয়ে চলেছেন মেধাবী শিক্ষার্থীদের । বন্যা-খরা, প্রাকৃতিক দুর্যোগে সাধ্যমতো অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন অসহায়ের ত্রাতা ছাইফুল ইসলাম। এ অঞ্চলের নদী তীরবর্তী জনপদে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান বর্তমান সরকারের একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। শতভাগ বিদ্যুতায়নের এ বৈপ্লবিক বিষয়টি অন্যান্য উন্নয়নের সাথে প্রয়াত সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের নামকে স্বর্ণাক্ষরে লিখে রাখবে। নদীভাঙ্গনকবলিত গ্রামীণ জনপদে দ্রুত বিদ্যুৎ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে তাঁর এ প্রচেষ্টায় সবসময় সহায়ক ভূমিকায় ছিলেন ছাইফুল ইসলাম।
এ কাজগুলোর পাশাপাশি ছাইফুল ইসলাম কৃষকদের উন্নয়নের জন্যও ভাবিত হয়েছেন। তাদের পাশে দাঁড়াতে তাঁর প্রতিষ্ঠিত বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা টিজিএসএস এর মাধ্যমে তৎপর রয়েছেন সৌর সেচের মাধ্যমে কৃষকদের স্বল্পমূল্যে পানি প্রদানে। চলমান রয়েছে সে কাজ।
নিরাপদ খাদ্যের অভাবে বাংলাদেশে অপুষ্টিসহ নানাবিধ অসুখে ভুগছে একটি বড় সংখ্যার মানুষ। তাদের কল্যাণে তিনি প্রতিষ্ঠা করেছেন নাফিম কনজ্যুমার প্রোডাক্টস্। আপাতত নাফিমের মাধ্যমে বিএসটিআই অনুমোদিত মশলা জাতীয় খাদ্য তৈরি করলেও ভবিষ্যতে নিরাপদ আরও খাদ্য তৈরিতে সচেষ্ট রয়েছেন তিনি।
এ ব্যাপারে মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন ছাইফুল ইসলামের সাথে কথা বললে তিনি জানান, ‘আমার দাদা, মামা ও বাবার কর্মকা-গুলো দেখে ছোটবেলা থেকেই মানুষের কল্যাণে কাজ করতে অনুপ্রাণিত হই। সে ধারাবাহিকতায় আমি জনকল্যাণকর কাজ করতে সচেষ্ট রয়েছি। মানুষের দুঃখ বেদনা আমাকে ব্যথিত করে, মানুষের অসহায়ত্বে কেঁদে ওঠে আমার মন। তাদের জন্য সামান্যতম কিছু করতে পরলেই তৃপ্তি পাই আমি। আমি আমার জীবনকে উৎসর্গ করেছি নদীভাঙ্গণকবলিত দীন-দরিদ্র-দুঃখী মানুষগুলোর জন্য।’

Check Also

সারিয়াকান্দির নয়া ইউএনও’র সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়

বগুড়ায় সারিয়াকান্দি উপজেলার নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রেজাউল করিমের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন আমরা মুক্তিযোদ্ধার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

15 − eleven =