সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / সাহিত্য-সংস্কৃতি / এম. এ. রাকীব এর কবিতা ‘ফেরা’

এম. এ. রাকীব এর কবিতা ‘ফেরা’

ফিরলে কেন? ফিরিয়ে দিয়ে ফিরে কী হবে?
আমাকে ফিরিয়ে দিয়ে, কষ্ট দিয়ে
আবার মুখোমুখি হবার জন্য প্রত্যাবর্তন করার কি দরকার?
আসা যাওয়ার এ পথ তোমার কাছে হয়তো খুব সহজ
কারন, তুমি বা তোমরা চিরকাল সারথি কিন্তু ঘোড়া নও।
ঘোড়া যত দ্রুত চলে সারথির তত আনন্দ
কিন্তু ঘোড়া জানে চাবুকের আঘাত কতটা কষ্টের, যন্ত্রনার।
তুমিও আমাকে নিয়ে ঘোড়ার দৌড় খেলে
সারথির মতই আনন্দ লুটেছো,
জীবনের অসংখ্য প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে
আমাকে ঘোড়ার ন্যায় কাজে লাগিয়েছো।
যেদিন তোমার প্রাচুর্যের দৌড়ে আমি দৌড়াতে ব্যর্থ
সেদিন তুমি আমার মনের পিঠে তোমার কথার
বিষাক্ত চাবুক বসিয়ে দিয়ে বলে ফেললে
যাহ্ আজ থেকে তোর সাথে আমার সব যোগাযোগ চুকে গেল।
আমি সারথির আদেশ পেয়ে দ্রুতগতির ঘোড়া থেকে নেমে
আহত হৃদয় নিয়ে খুঁড়ে খুঁড়ে চলতে থাকলাম
আর তুমি বেগবতী, সামনে ছুটে চললে
আমাকে সীমাহীন পেছনে ফেলে এগিয়ে গেলে।
এত দূরে গেলে সেখানে পৌঁছার কল্পনা করার অধিকার
বা ক্ষমতা কিছুই আমার ছিল না।
তুমি যেমন কল্পনার বাইরে চলে গেলে
তেমনি কল্পনাতীত ভাবে ফিরতেও তোমার কাছে সহজ।
তুমি যেভাবেই ফিরে আস না কেন আমার তাতে কোন লাভ নেই
বরং ক্ষতির পরিমাণ টা আরো বেড়ে যাবে।
আমাকে ছেড়ে যাওয়ার আগে তোমার সব আচরণ আমার ভাল লেগেছিল
কারন, আমার বুঝতে দেরি হয়েছিল যে
আমাকে দূরে ঠেলে দেওয়ার জন্যই এত কাছে টানাটানির অভিনয়।
পৃথিবীটা যদি গোল না হয়ে লম্বা হতো তবে তুমি ফিরে আসতে না
চলে যেতে জগতের সীমা অতিক্রম করে সত্যকে ছাড়িয়ে
কোন অজানা মিথ্যের গ্রহে।
কারন, তোমাদের বেগ গতির কাছে অসহায় নিপীড়িত
মানুষের ভালোবাসা তুচ্ছ, ঠুনকো, মিথ্যে বলে।
ও গতি এ পৃথিবীর সব সত্য ও স্বভাবিক গতির শত্রু।
যাক, বহুবছর, যুগ কেটে গেছে
আজ তোমার ওইসব অভিনয়ের কথা মনে হলে আমার খুব আনন্দ লাগে।
মনে হয় সেই অভিনয়ই সাড়া জীবন করলে না কেন?
জীবন নাট্যের মিডেল টার্মে এসে অভিনয় থামিয়ে দিয়ে
আমাকে দুই শতাব্দী পঙ্গু করে রেখেছো।
আজ কেন আবার ফিরে এসেছো? নাটকের শেষাঙ্ক নিয়ে এসেছো?
কিন্তু আমার বিশ্বাস হবে কি করে আমি সেই আনন্দ ফিরে পাবো?
তার চেয়ে সেটাই ভালো যে, আমার পঙ্গু জীবনে
তোমার সাথে কেটে যাওয়া অতীতের সুখস্মৃতি গুলো চারণ করি।
তাতেই বরং আমার বেশি তৃপ্তি হবে।
তোমাকে কাছে টেনে চাবুকাঘাতের পুনরাবৃত্তি না ঘটুক।
এবারের আঘাত পঙ্গুত্ব আনবে না, মৃত্যু আনবে।
এটাই ভালো, এবার তুমি ফিরে যাও, আর আমার নিকট এসোনা।
ফিরে এসে আমাকে বারবার কষ্ট দিওনা।
তুমি যতখানি স্মৃতিতে আছ ততখানিই থাকো
আমার স্মৃতিতে তোমার দেয়া ভালোবাসা আর বেদনা
যোগ চিহ্ন হয়েই থাকুক চিরকাল।
তাতেই আমি সুখে থাকার চেষ্টা করবো।
আমি চাইনা তুমি ফিরে আসায় বেদনার ধারেকাছে
কোন গুণ চিহ্নের সন্নিবেশ ঘটুক।
তাতে আমার ভাঙ্গা হৃদয় আরো বিপর্যস্ত হয়ে পরবে।
আমি আরো নিষ্পেষিত হবো
আমার পরবর্তী প্রজন্ম স্নেহ, প্রেম-ভালোবাসায় নিস্পৃহ হয়ে পরবে।
দূর থেকে সময়ের আবর্তনে তোমার ভালো স্মৃতিগুলোই রোমন্থন করবো।
আমার পক্ষ থেকে প্রজন্মের কাছে এই প্রতিজ্ঞাই থাকবে
যেন তুমি কোন দিন না ফিরো।

Check Also

জামিল উদ্দিন এর কবিতা ‘একুশ আবার আসুক’

আবার সালাম আসুক রফিক আসুক ফাগুনের ঝাঁজালো দিনে আবারো ফিরে আসুক সেই বাহান্ন সেই আটই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × four =