সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / গাইবান্ধার খবর / পলাশবাড়ীতে বিদ্যুতের পিলার হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে জীবন্ত ইউক্যালিপটাস গাছ ও বাঁশের খুঁটি

পলাশবাড়ীতে বিদ্যুতের পিলার হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে জীবন্ত ইউক্যালিপটাস গাছ ও বাঁশের খুঁটি

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে পিডিবি কর্মকর্তাদের দায়িত্ব অবহেলার কারণে দীর্ঘদিন থেকে দূর্গাপূর (নয়াবাজার) যাওয়ার রাস্তাটিতে বিদ্যুতের পিলার হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে জীবন্ত ইউক্যালিপটাস গাছ আবার কোথাও ব্যবহার হচ্ছে বাঁশের খুঁটি।
সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার দূর্গাপুর যাওয়ার রাস্তাটিতে বিদ্যুৎ লাইনের অসংখ্য তার ঝুঁলতে দেখা যায়। কিন্তু বিদ্যুৎ বিতরণ কর্তৃপক্ষের কোথাও বিদ্যুতের পিলার খুঁজে পাওয়া যায়নি। সেখানে দেখতে পাওয়া যায়, জীবন্ত ইউক্যালিপটাস গাছকে ব্যবহার করা হচ্ছে বিদ্যুতের পিলার হিসেবে। এমনকি ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে বিদ্যুতের পিলার হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে বাঁশের খুঁটি। রাস্তার উপরে এবং রাস্তার সাইড দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে বিদ্যুতের তার গুলো। উল্লেখ্য যে, বিদ্যুতের ঐ তারগুলো নিচ থেকে (হাত) দিয়ে ধরা যাবে। আর এ কারণে ঘটে যেতে পারে প্রাণহানির মত বড় ধরণের দূর্ঘটনা। নিভে যেতে পারে প্রাণপ্রদীপ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভুক্তভোগী জানান, দীর্ঘদিন থেকে আমাদের এখানে পিডিবি’র বিদ্যুৎ বিতরণ লাইনগুলো জীবন্ত গাছ ও বাঁশের খুঁটিকে পিলার হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। এমনকি বিদ্যুতের পিলার না থাকায় অসংখ্য গ্রাহকের তারগুলো ঝুঁলন্ত ভাবে নিচ দিয়ে ও গাছের ডালপালার ভিতর দিয়ে নিয়ে যাওয়ার কারণে অত্যান্ত ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। যে কোনো সময় প্রাণহানিসহ অঙ্গহানির মত দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। তিনি জরুরী ভিক্তিতে বিদ্যুৎ বিতরণ কর্তৃপক্ষের আশুহস্তক্ষেপ কামনাসহ দ্রুত বিদ্যুৎ লাইনটি সংস্কারের জোর দাবি জানান।
এবিষয়ে জানতে বিদ্যুৎ বিতরণের আবাসিক প্রকৌশলীর নিকট একাধিকবার ফোন দেওয়া হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। তবে দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা এ প্রতিনিধিকে জানান, এলাকার বিদ্যুৎ গ্রাহকগণ যোগাযোগ না করায় এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।

Check Also

বাবার মৃত্যুর ১৯ দিন পর জন্ম নিলো দুর্ঘটনায় নিহত পরমাণু প্রকৗশলীর দ্বিতীয় সন্তান

মনজুর হাবীব মনজু,গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি : সাভারে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত পরমাণু শক্তি কমিশনের প্রকৌশলী কাওছার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

3 × 3 =