সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / বগুড়ার খবর / বগুড়ার শাহজাহানপুরে ট্রাক ভর্তি নষ্ট টাকা পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার

বগুড়ার শাহজাহানপুরে ট্রাক ভর্তি নষ্ট টাকা পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার

মো. আব্দুল ওয়াদুদ, বগুড়া প্রতিনিধি : বগুড়ার শাজাহানপুরে ট্রাক ভর্তি কয়েক বস্তা নষ্ট টাকার নোট পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করেছে শাজাহানপুর থানা পুলিশ। থানা সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের নষ্ট কয়েক কোটি টাকার নোট মেশিনে টুকরা টুকরা করে বস্তা ভর্তি করে ট্রাক যোগে সেগুলো ফেলে দেয়া হয়েছে। এ খবরে জনমনে ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। তবে নষ্ট টাকার নোট পুড়িয়ে ফেলার নিয়ম থাকলেও নোটগুলো কেন রাস্তায় ফেলা হয়েছে তা জানা যায়নি। মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে লোকমুখে খবর পেয়ে শাজাহানপুর থানা পুলিশের ওসি আজিমুদ্দিনের নেতৃত্বে একটি টিম ঘটনাস্থল শাজাহানপুর উপজেলার খাউড়ার ব্রীজ সংলগ্ন বাগবাড়ী রোডের পাশে পরিত্যক্ত অবস্থায় প্রায় ১০ বস্তা টাকা উদ্ধার করে। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় টাকাগুলো টুকরা টুকরা করে মেশিনে কাটা হয়েছে। পুলিশ দুপুর ১টা পর্যন্ত বস্তার টুকরা নোটগুলো জব্দ করছিল। এ ব্যাপারে শাজাহানপুর থানা পুলিশের ওসি আজিমুদ্দিন জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংকের নষ্ট নোট মেশিনে টুকরা টুকরা করে বস্তা ভর্তি করে ফেলা দেয়া হয়েছে। তবে নিশ্চিত হতে তদন্ত চলছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের একটি সূত্রে জানা গেছে, নষ্ট টাকা আগুনে পুড়িয়ে ফেলার নিয়ম রয়েছে। তবে কি কারনে তা না পুড়িয়ে রাস্তার পাশে ফেলে দেয়া হয়েছে তা তাৎক্ষনিকভাবে জানা যায়নি। তবে এ বিষয়ে বগুড়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী আবু হেনা মোস্তফা কামালের কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের বগুড়া শাখার যুগ্ম ব্যবস্থাপক শাজাহান আলী বগুড়া পৌরসভার মেয়র এ্যাড. মাহবুবুর রহমানের কাছে লিখিত আবেদন করে ব্যাংকের অভ্যন্তরে ভল্টে থাকা নষ্ট টাকা পরিবহনের জন্য পৌরসভার গাড়ি দেয়ার আবেদন জানান। তার প্রেক্ষিতে পৌর মেয়র আবেদনটি অনুমোদন দেয়ার পর গত রবিবার দুপুর ২টায় বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ পৌরসভার গাড়িতে করে নষ্ট কাটা টাকা বহন করে শাজাহানপুর উপজেলার খাউড়ার ব্রীজ সংলগ্ন বাগবাড়ী রোডের পাশে ফেলে দিয়ে আসে। তবে বাংলাদেশ ব্যাংকের একটি সূত্র জানিয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বগুড়া শাখা পরিদর্শনে আসবেন আর সে কারণেই ব্যাংকের অভ্যন্তরে থাকা নষ্ট টাকা সহ অন্যান্য নষ্ট মালামাল পরিষ্কার করার জন্যই বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে পরিবহন সহযোগিতা চাওয়া হয় বলে সূত্রটি নিশ্চিত করেছে। শুধু তাই নয় বগুড়া পৌরসভার মেয়রের সিএ মামুন জানান, বগুড়া পৌরসভার বর্জ্য ফেলার জন্য ব্যবহার্য গাড়ি (বগুড়া-ট-১১২৪০৩) গাড়িতে করে বাংলাদেশ ব্যাংকের লোকজন উক্ত নষ্ট নোটগুলো ঘটনাস্থলে ফেলে দিয়ে আসে। গতকাল কয়েক বস্তা নোট পাওয়ার ঘটনা জানার পর কৌতুহলী শত শত মানুষের পাশাপাশি বগুড়া পৌর মেয়র এ্যাড. মাহবুবুর রহমান, বগুড়া জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী সহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এদিকে শাজাহানপুর এলাকায় বস্তা ভর্তি কাটা নোট পাওয়ার ঘটনায় বগুড়া সহ দেশব্যাপী ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। শুধু বগুড়ায় নয় জেলার বাইরে থাকা আত্মীয়-স্বজন, পরিচিতজনরা ফোন করে টাকা পাওয়ার ঘটনার বিষদ জানতে কৌতুহল প্রকাশ করছে। ফলে এ ঘটনা এখন টক অব দ্যা বগুড়ায় পরিণত হয়েছে।

Check Also

সোনাতলা থিয়েটারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুন্নবীর মা’র মৃত্যুতে শোক

সোনাতলা (বগুড়া) প্রতিনিধি: সোনাতলা থিয়েটারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রমজান আলী নুরুন্নবীর মা জোবেদা বেগমের মৃত্যুতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

12 + 7 =