সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / বগুড়ার খবর / বগুড়ার শাহজাহানপুরে স্বামী কর্তৃক বন্ধুকে দিয়ে ধর্ষণ ও শরীরে আগুন দেয়ায় সুজনের মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

বগুড়ার শাহজাহানপুরে স্বামী কর্তৃক বন্ধুকে দিয়ে ধর্ষণ ও শরীরে আগুন দেয়ায় সুজনের মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

মো. আব্দুল ওয়াদুদ, বগুড়া প্রতিনিধি : বগুড়ার শাজাহানপুরে লম্পট স্বামী কর্তৃক বন্ধুকে দিয়ে ধর্ষণ করে মাথায় চুল কেটে শরীরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টার প্রতিবাদে মঙ্গলবার শহরের সাতমাথায় মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করা হয়েছে। সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক বগুড়া জেলা কমিটির উদ্যোগে এই কর্মসূচী পালন করা হয়। সুজনের জেলা সহ-সভাপতি হাফিজার রহমান মন্টু’র সভাপতিত্বে¡ বক্তব্য রাখেন সুজনের জেলা সাধারণ সম্পাদক হুমায়ন ইসলাম তুহিন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম লেবু, সমন্বয়কারী আলমাছ খান, নির্বাহী সদস্য শফিকুল ইসলাম শফিক, গাবতলী উপজেলা কমিটির সহ-সভাপতি সাজেদুর রহমান মোহন, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ আবু মুসা, কাহালু উপজেলা সভাপতি আঃ সাত্তার, শাজাহানপুর উপজেলা সভাপতি সাজেদুর রহমান সবুজ, সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান, শিবগঞ্জ উপজেলা সভাপতি আঃ ওয়াদুদ, বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক প্রকৌশলী রোকন তালুকদার, সুজনের গাবতলী উপজেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আল আমিন মন্ডল, কোষাধ্যক্ষ ফজলুল হক বাবলু, নির্যাতিত গৃবধুর’র মা আয়মা বেগম, বাবা আলম মন্ডল, ভাই রবিন হোসেন, মেয়ে রাইফা ইসলাম, বড় চাচা বেলায়েত মন্ডল বেলু, খালা আছমা বেগম, খালু উজ্জল শেখ, শহিদুল ইসলাম, এলাকার মোস্তাফিজুর রহমান মাষ্টার, হাফিজার রহমান, মাহফুজার রহমান, জাহাঙ্গীর আলম, আঃ রহমান, মৌসুমী বেগম, টুম্পা বেগম, তাকি প্রমূখ। মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় বক্তাগণ বলেন, লম্পট স্বামীকে গ্রেফতার করা হলেও ধর্ষককে এখনো গ্রেফতার করা হয়নি। অবিলম্ভে অপররাধীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানানো হয়। উল্লেখ্য, বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলাধীন চকলোকমান (শ্যামলীর মোড়) জনৈক বাবু মিয়ার মালিকানাধীন বাড়িতে ওই নির্যাতিত গৃহবধু ভাড়া নিয়ে অবস্থান করাকালে গত ১৫ ফেব্রæয়ারী দুপুর আনুমানিক ১২টায় স্বামী রফিকুল ইসলাম ও তার সঙ্গীয় অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি প্রাচীর টপকিয়ে বাসার ভিতর প্রবেশ করে মূখ চেপে ধরে হাত, পা ওড়না দিয়ে বেধে শরীরের বিভিন্ন স্থানে বেøড দিয়ে জখম করে এবং মাথার চুল কেটে দেয়। এর পর স্বামীর সহায়তায় অজ্ঞাতনামা বন্ধু ধর্ষণ করে এবং শরীরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করার চেষ্ঠা করে। এ ঘটনায় নির্যাতিত গৃহবধূ’র পিতা আলম মন্ডল বাদী হয়ে পরের দিন শাজাহানপুর থানায় মামলা দায়ের করলে লম্পট ও পাষন্ড স্বামী রফিকুল ইসলামকে পুলিশ গ্রেফতার করে। কিন্তু ধর্ষক এখনো ধরা ছোয়ার বাহিরে রয়েছে। লম্পট ও পাষন্ড স্বামী রফিকুল ইসলাম জেলার গাবতলী উপজেলার বালিয়াদিঘী ইউনিয়নের মালিয়ানডাঙ্গা গ্রামের তোজাম্মেল হক তোজো’র ছেলে।

Check Also

বগুড়ায় দুই দিনের কবি সম্মেলন

বগুড়ায় শুরু হয়েছে লেখক চক্রের দু’দিনের কবি সম্মেলন। শুক্রবার সকালে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এই সম্মেলনের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty + 5 =