সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / বগুড়ার খবর / বিয়ের সপ্তাহ না পেরুতেই মহিমাগঞ্জে লাশ হয়ে গেলো এক কিশোরী গৃহবধূ

বিয়ের সপ্তাহ না পেরুতেই মহিমাগঞ্জে লাশ হয়ে গেলো এক কিশোরী গৃহবধূ

মনজুর হাবীব মনজু, গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি : প্রেম করে বিয়ের এক সপ্তাহ যেতে না যেতেই স্বামী এবং শ্বশুর বাড়ীর লোকজনের নির্মম নির্যাতনে কিশোরী গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের ছয়ঘড়িয়া গ্রামে বুধবার স্বামীর বাড়ি থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গত ১২ মে ওই গ্রামের আশরাফুল ইসলামের ছেলে রেহান মিয়া (১৮) পাশর্^বর্তী সাঘাটা উপজেলার সাথালিয়া গ্রামের মোজাফ্ফর রহমানের কিশোরী কন্যা শারমিন আক্তার (১৫) কে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পালিয়ে বিয়ে করে। আজ সকালে প্রতিবেশীরা ঘরের মধ্যে শারমিনের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

গোবিন্দগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আলাউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, লাশ উদ্ধার করে থানায় নেয়া হয়েছে। লাশের নাকে মুখে রক্ত ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলেও তিনি জানান। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই বিয়ের স্বাক্ষী একই গ্রামের ঠান্ডু আকন্দের ছেলে জুয়েল মিয়াকে আটক করা হয়েছে।

নিহত গৃহবধূর স্বজনরা অভিযোগ করে জানিয়েছেন, শারমিনের শ্বশুরবাড়ির লোকজনের নির্মম নির্যাতনে তার মৃত্যু হয়েছে। এ বিষয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের পিতা মোজাফফর রহমান।

 

Check Also

সারিয়াকান্দিতে ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন

সাহাদত জামান: বগুড়া সারিয়াকান্দিতে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুর্ধ্ব ১৭ এর শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

3 × 5 =