সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / বগুড়ার খবর / শেরপুরে বিনামূল্যে বই পড়তে গড়ে উঠেছে “পলান বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র”

শেরপুরে বিনামূল্যে বই পড়তে গড়ে উঠেছে “পলান বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র”

মো.আব্দুল ওয়াদুদ, বগুড়া প্রতিনিধি : বই পৃথিবীর শ্রেষ্ঠদান, আর এই বই প্রজন্মকে বই পড়তে উৎসাহি করতে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার ১০নং শাহবন্দেগী ইউনিয়নে ৫নং ওয়ার্ড শেরুয়া বটলতা নওদাপাড়া গড়ে উঠেছে “পলান বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র” নামে একটি বেসরকারী লাইব্রেরী। জনসাধারণের মাঝে বই পড়ার অভ্যাস গড়ে ওঠার প্রয়াসে এই কার্যক্রম শুরু হয়। লাইব্রেরীতে বিভিন্ন ধরণের বই, সাময়িকী, পত্র-পত্রিকার সংগ্রহ রাখা হয়েছে। এছাড়া জাগতিক নানা বিষয়ে বিভিন্ন ক্যাটাগরির বইসহ প্রতিবেদন, কারেন্ট এ্যাফেয়ার্স ও সাময়িকী সংগ্রহে রয়েছে। এক্ষেত্রে ফি প্রদান ছাড়াই লাইব্রেরীতে সুবিধা পেয়ে থাকেন সাধারণ নাগরিক। জানাযায়, বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় ফ্রি সার্ভিস পাবলিক লাইব্রেরী এটি। ২৫ মার্চ ২০১৯ সালে ১০ জন যুবক প্রজন্মকে বই পড়তে উৎসাহি করতে এই লাইব্রেরী প্রতিষ্ঠিত করে। লাইব্রেরীটি নিয়মিত খোলা থাকে। এখানে সকাল ৭টা থেকে ৮ টা ৩০মিঃ পর্যন্ত ১ম শ্রেণী থেকে ৫ম শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদের বিনামূল্যে প্রাইভেট পাড়ানো হয়। সামান্য কিছু বই নিয়ে চালু হওয়া লাইব্রেরীতে রয়েছে পাঠদানের বই ও দৈনিক, সাপ্তাহিক, পাক্ষিক, মাসিক, ষান্মাসিক ও বাৎসরিক পত্রিকা, গল্পের বই, ম্যাগাজিন। মাত্র কয়েক মাসে তারা ৩শ ৫০জন পাঠকের মাঝে সেবা প্রদান করে আসছে। কিন্তু অল্প বই থাকায় পাঠকের চাহিদা মত সেবা দিতে পারছে না। সুযোগ-সুবিধা সম্পূর্ণ নিরিবিলি ও কোলাহলমুক্ত পরিবেশে বসে বই পড়ার জন্য টেবিল ও চেয়ারের ব্যবস্থা রয়েছে। আলো ও বাতাসের জন্য রয়েছে লাইট ও ফ্যানের ব্যবস্থা। উলে¬খ্য এখানে মহিলা ও পুরুষদের জন্য আলাদাভাবে বসে বই পড়ার ব্যবস্থা নেই। যেকোন মানুষ প্রয়োজনে বই বাসায় নিয়ে পড়তে পারবে। পাঠক বাসায় বই নিয়ে ৩.৪.৫.৭ দিনের মধ্যে ফেরত না দিলে লাইব্রেরী থেকে পাঠকের সঙ্গে যোগাযোগ করে আবার বই সংগ্রহ করা হয়। কিন্তু বই সংকট হওয়ায় পাঠকের চাহিদামত বই বিতরণ করা যাচ্ছে না। এতে কোন অতিরিক্ত চার্জ ছাড়াই পাঠক-পাঠিকাদের বই গ্রহন করতে পারছে। আবু আসাদ, হানিফ, রাজু, রাসেলরা জানান, আমরা নিজ উদ্যোগে এটা করেছি, ওয়ার্ড মেম্বার সাইদার যতেষ্ট সহযোগিতায় করেছে। মাত্র কয়েক মাসে পাঠকের যে সাড়া পেয়েছি যদি সরকারি কোন অনুদান পাই তাহলে “পলান বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র”টি পাঠকের চাহিদা মেটাতে সক্ষম হবে। তাছাড়া হয়তোবা সম্ভব হবেনা। তাই সকারের নিকট আবেদন করছি আমাদের যেন সহযোগগিতা করেন। এ ব্যাপারে ১০নং শাহবন্দেগী ইউনিয়নে ৫নং ওয়ার্ড মেম্বার সাইদার রহমান সাবিক বলেন, প্রথম থেকেই আমি সহযোগিতা করছি। এখানে পর্যায়ক্রমে পত্রিকা ও সাময়িকী জাতীয় গণ গ্রন্থাগারে বাংলাদেশের সর্বাধিক প্রচারিত দৈনিক, সাপ্তাহিক, পাক্ষিক, মাসিক, ষান্মাসিক ও বাৎসরিক পত্রিকা ও সাময়িকী পাওয়া যাবে। আরোও পাওয়া যাবে চাকুরীর খবর ও কারেন্ট এ্যাফেয়ার্স। এছাড়া এখানে পাঠকের প্রয়োজন ও চাহিদার দিক বিবেচনা করে পুরনো পত্রিকাও সংগ্রহে করা হবে। শিশু-কিশোর শিশু কিশোরদের জ্ঞানের বিকাশ ও বিনোদনের বিষয়টিকে আলাদাভাবে এখানে ম‚ল্যায়ন করা হবে। যার ফলশ্রুতিতে লাইব্রেরীর এক অংশে আলাদাভাবে শিশু কিশোর গ্রন্থাগার গড়ে তোলা হয়েছে। এখানে শিশুতোষ সকল প্রকার বই, ম্যাগাজিন ও পত্রিকা পাওয়া যাবে। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিয়াকত আলী সেখ এমন মহৎ কাজকে স্বাগত জানিয়ে তিনি বলেন, বিষয়টি আমাকে কেউ জানায়নি তবে আমি জানলাম উপজেলা থেকে “পলান বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রে” সার্বিক সহযোগিতা করা হবে।

Check Also

রোটারী ক্লাব অব বগুড়ার উদ্যোগে বগুড়ায় বৃক্ষরোপন কর্মসূচী পালিত

মোঃ আব্দুল ওয়াদুদ,বগুড়া প্রতিনিধিঃ মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় যথাযত স্বাস্থ্যবিধি মেনে বগুড়া সরকারি আজিজুল হক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × 5 =