সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / ফিচার সংবাদ / সাঘাটার চরে পেঁয়াজের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

সাঘাটার চরে পেঁয়াজের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

জয়নুল আবেদীন,স্টাফ রিপোর্টারঃ গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার চরাঞ্চলের মানুষের আয়ের উৎস চাষাবাদ ও মাছ ধরা। কিন্তু বর্তমানে শুষ্ক মৌসুম নদীতে পানি নাথাকায় মাছ ধরার পরিবর্তে পেঁয়াজের চাষ শুরু করেছে। পেঁয়াজের বাজারমূল্য বেশি থাকায় চরাঞ্চলের কৃষকরা পেঁয়াজ চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার পেঁয়াজ চাষ ভালো হয়েছে।
গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা উপজেলার যমুনা নদীর বুকে চরাঞ্চলে পেঁয়াজের বাম্পার ফলনের আশায় হাসি ফুটেছে কৃষকের মুখে। কম খরচে অধিক ফলন ও ভালো দাম পেলে প্রতি একরে প্রায় ৭০ হাজার টাকা লাভ হবে পেঁয়াজ চাষীদের। পাতিলবাড়ি চরের বাসিন্দা কৃষক জলিল মোল¬া বলেন, আমি তিন একর জায়গায় পেঁয়াজ চাষ করেছি। আমার একর প্রতি খরচ হয়েছে ১০ হাজার থেকে ১৫ হাজার টাকা। এক একর জমিতে ফলন হবে ৮০-৯০ মণ। বাজারে এক মণ পেঁয়াজ ১৮’শ থেকে ২ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রয় করা যাবে। এক একর জমির পেঁয়াজ বিক্রয় করে লাভ হবে প্রায় ৭০ হাজার টাকা।
দক্ষিণ দীঘলকান্দি চরের বাসিন্দা কৃষক মনির মিয়া জানান, চরের বালু মিশ্রিত জমিতে অন্য ফসলের তুলনায় পেঁয়াজ চাষ ভালো হয়। এবার বাজারে দাম বেশি থাকায় আমি ২ একর জমিতে পেঁয়াজ চাষ করেছি। জমিতে সামান্য পারি সেচ এবং সঠিকভাবে পরিচর্যা করলে পাওয়া যাবে আশানুরূপ ফলন। পেঁয়াজ চাষে খরচ ও পরিশ্রম কম তুলনায় লাভ বেশি হওয়ায় চরাঞ্চলে পেঁয়াজের চাষ দিন দিন বাড়ছে। রাসায়নিক কোনো সারের তেমন প্রয়োজন হয় না । এবার উপজেলার চরাঞ্চলে ২ শত ৩৭ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজের আবাদ হয়েছে।
হলদিয়া ইউনিয়নের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মওলা মিয়া বলেন,যমুনা নদী বুকে জেগে ওঠা চরাঞ্চলের মাটি পেঁয়াজ চাষের জন্য খুব উপযোগী। বাণিজ্যিকভাবে পেঁয়াজ চাষের উদ্যোগ গ্রহণ করলে বদলে যেতে পারে চরাঞ্চলের দরিদ্র কৃষকের ভাগ্য। চরাঞ্চলে পেঁয়াজসহ বিভিন্ন অর্থকরী ফসল উৎপাদনের লক্ষ্যে আমরা কৃষকদের সহযোগিতা ও পরামর্শ প্রদান করছি।
উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ সাদেকুজ্জামান বলেন, আমার চরাঞ্চলের কৃষকদের জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে অর্থকরী ফসল পেঁয়াজ, চিনা, কাউন, বাদাম, মাষকালাই, মুসুর ডালসহ বিভিন্ন ফসল উৎপাদনে কৃষকদের বীজ, সার দেয়ার পাশাপাশি পরামর্শ প্রদানকরে কৃষির টেকসই উন্নয়নে কাজ করা হচ্ছে।

Check Also

রঙিন মাছ চাষে ভাগ্য বদল মহিমাগঞ্জের বিপ্লবের

মনজুর হাবীব মনজু, (গোবিন্দগঞ্জ) গাইবান্ধা থেকে : এসএসসি পাশের পর বাবার সাথে অভিমানে বাড়ি ছেড়েছিলেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

12 + 10 =