সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / গাইবান্ধার খবর / সাঘাটায় নকশী বাংলা উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে মুজিব জন্মশত বার্ষিকীর প্রস্তুতিতে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে আলোচনা

সাঘাটায় নকশী বাংলা উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে মুজিব জন্মশত বার্ষিকীর প্রস্তুতিতে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে আলোচনা

জয়নুল আবেদীন, বিশেষ প্রতিনিধি : হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙা্লি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে অনুষ্ঠান প্রস্তুতি বিষয়ে সাঘাটায় নকশী বাংলা উন্নয়ন সংস্থা সাঘাটা উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে ১৩ মার্চ বিকালে সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেন।
সংস্থার নিবাহী প্রধান গোলাম মোস্তফার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাঘাটা ফুলছড়ির যুদ্ধ কৌশল কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শামছুল আলম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজার রহমান ওরফে মোস্তফা সরদার, বীরমুক্তিযোদ্ধা আবু বক্কর সিদ্দিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা জাবেদ আলী সরদার আরো উপস্থিত ছিলেন সাঘাটা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার ও সাঘাটা উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সভাপতি আব্দুল মান্নান মন্ডলসহ অনেকে।

শুভেচ্ছা বক্তব্য নকশি বাংলা উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী প্রধান গোলাম মোস্তফা বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলার লক্ষ্যে নকশি বাংলা উন্নয়ন সংস্থা নিজ অবস্থানে থেকে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে সহযোগিতা করার চেষ্টা করছে। টেকসই জীবন মান উন্নয়নে সমাজের সাধারন মানুষের সেবায় সরকার ও সুশিল সমাজের সবসময় সহযোগিতা ও পরামর্শ কামনা করেন।

তিনি বলেন নকশি বাংলা মুলতঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দুটি চিন্তার উপর ভিত্তি করে কাজ করে যাচ্ছে। তার একটি হলো প্রতিটি গ্রামকে শহরে রুপান্তরিত করা। অর্থ্যাৎ শহরের লোকজন যে সকল সুযোগ সুবিধা পায় গ্রামের লোকজন যেন সেই সকল সুযোগ সুবিধা পায়। দ্বিতীয়টি হলো যুব সমাজকে বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে উদ্দোক্তা হিসেবে তৈরি করে স্বাবলম্বী করে গড়ে তোলা যাতে তারা চাকুরি বা আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি করে আয়ের মাধ্যমে নিজেকে, পরিবারকে, দেশকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত করতে সহায়তা করে। তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ সরকারের সমাজ সেবার নিবন্ধন নিয়ে বিধি মোতাবেক মানুষের টেকসই জীবন মান উন্নয়নে বিভিন্ন কর্মপরিকল্পনা কাজ হাতে নিয়েছে।
তিনি আরো বলেন, মুজিব বর্ষে নকশি বাংলার ইতিহাসে একটি সোনালী বর্ষ হিসেবে রচিত হবে। জনগণের উন্নয়নে বেশ কিছু নতুন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এর মধ্যে নকশি বাংলা ডায়োগনোষ্টিক সেন্টার, যা ফুলছড়ির কালির বাজারে স্থাপিত হবে। শুধুমাত্র এক্সরে মেশিন ব্যাতিত সকল যন্ত্রপাতি ক্রয় করা হয়েছে। এখানে চিকিৎসার পরীক্ষা নীরিক্ষায় মুক্তিযোদ্ধা, প্রতিবন্ধী, তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ, মেধাবী গরিব ছাত্রছাত্রী ও সদস্যদের শতকরা ২৫ টাকা ছাড় দেয়া হবে এবং প্রতিমাসে উপজেলার চরাঞ্চলের মানুষদের দোড়গোড়ায় চিকিৎসা সেবা পৌছে দেয়ার জন্য প্রতি মাসে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা মেডিকেল ক্যাম্প পরিচালনা করা হবে। স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ওয়ার্ড পর্যায়ে যে সকল স্বাস্থ্যকর্মী কাজ করবে তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবে শীট ফাউন্ডেশন বগুড়া, যা মুজিব বর্ষেই উদ্বোধন করা হবে।
সাঘাটায় প্রস্তাবিত ড. এমএ ওয়াজেদ মিয়া আইসিটি ইন্সটিটিউট মুজিব বর্ষেই শুভ উদ্বোধন করা হবে । যার কারিগরি সহযোগিতা ও সনদ প্রদান করবে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ। এছাড়াও আমাদের অঙ্গীকার অনুযায়ী সদস্যদের ও তাদের পরিবারের সদস্যদের আকর্মসংস্থান মূলক প্রশিক্ষণ যেমন দর্জি প্রশিক্ষন, নকশি কাথা, হ্যান্ডিক্রাফট, বাটিক-বুটিকের কাজ শেখানো হবে এবং তাদের অফিসেই কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে।
এছাড়াও নকশি বাংলা ই- কমার্স এর মাধ্যমে সাঘাটা উপজেলায় স্বল্প আয়ের মানুষের মাঝে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য নিয়ে হোম সার্ভিস চালু করেছে। যা আগামীতে জেলা জুড়ে চালু করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এতে করে দারিদ্র মানুষদের পরিবারদের সুদখোর দাদন ব্যবসায়ীদের হাত হতে রক্ষা পাবে। সদস্যগণ ১ হাজার টাকার পণ্য নিলে তারা মাত্র ২৫০ টাকা ডাউন্ট পেমেন্ট করে। বাকী টাকা নাম মাত্র সার্ভিস চার্জের মাধ্যমে পরিশোধ করছে।

প্রধান অতিথি মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শামছুল আলম বলেন, নকশি বাংলা উন্নয়ন সংস্থা মানুষের কল্যাণে যেভাবে কাজ করে যাচ্ছে জেলার সকল এনজিও সংগঠনকে এমনি আরো ভালো কাজ করতে অনুরোধ জানাবো । তিনি বলেন, আমরা যুদ্ধ করেছিলাম বাংলার মানুষের পরাধীনতার শেকল থেকে মুক্তি ও অর্থনৈতিক মুক্তির স্বাধীনতা অর্জনের জন্য। দীর্ঘ ৪৯ বছর পর তার সুফল পেতে শুরু করেছি। আশা করি আগামী অল্পদিনেই তা আমরা সকলে মিলে অর্জন করবো।
মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজার রহমান ও জাবেদ সরদার বলেন, আমরা নকশি বাংলার কাজ মাঠে ঘাটে দেখেছি। তাদের কাজে মানুষ উপকৃত হচ্ছে এবং ভবিষ্যতেও হবে। আরো বলেন, এই প্রথম কোন সংস্থা শুধুমাত্র মুক্তিযোদ্ধাদের ডেকে মিটিং করে তাদের মতামত নিলো। এজন্য আমরা আজ কথা দিয়ে গেলাম আমরা নকশি বাংলার পাশে আছি থাকবো। পরে শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী পালন উপলক্ষে বিভিন্ন মতামত গ্রহণ করেন।
অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সাঘাটা উপজেলা সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা দেলোয়ার হোসেন।

Check Also

সরকারি নাজির আখতার কলেজের ৯৫ ব্যাচের মেধাবী ছাত্র প্রভাষক মিজানুর রহমানের অকালপ্রয়াণ

বাঙালি বার্তা ডেস্কঃ সরকারি নাজির আখতার কলেজের ৯৫ ব্যাচের মেধাবী ছাত্র ও বোনারপাড়া ডিগ্রী কলেজের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 − 5 =