সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / বগুড়ার খবর / সাড়ে পাঁচশ’ দিন পরে ক্লাশে ফিরে আনন্দিত মহিমাগঞ্জ আলিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা

সাড়ে পাঁচশ’ দিন পরে ক্লাশে ফিরে আনন্দিত মহিমাগঞ্জ আলিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা

মনজুর হাবীব মনজু,গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি :
সরকারি ঘোষনা শুনে আগেই প্রস্তুত ছিলো তারা। রোববার সকাল দশটার আগেই তাই পৌঁছে যায় অনেকেই প্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। টানা প্রায় সাড়ে পাঁচশ’ দিন পরে প্রিয় প্রাঙ্গণে ঢোকার আগে ভেবেছিলো তারা, না জানি কেমন আছে তাদের বিদ্যাপীঠ! সব কিছু ঠিক ঠাক আছে তো? কিন্তু প্রিয় বিদ্যাপীঠকে প্রত্যাশার চাইতে অনেক বেশী সুন্দর রূপে আর নতুন সাজে সজ্জিত দেখে খুশীর জোয়ারে ভেসে যায় তারা। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্রেণিকক্ষে ঢোকার জন্য কর্তৃপক্ষের নেয়া অভূতপূর্ব ব্যবস্থাপনায় নতুন করে আপ্লুত হয়ে পড়ে শিক্ষার্থীরা।
গতকাল রোববার সকালে গাইবান্ধার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জ আলিয়া কামিল মাদ্রাসায় গিয়ে দেখা যায় এমন দৃশ্য। মফস্বলের একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হলেও এ মাদ্রাসায় ক্লাশ শুরুর জন্য বেশ ভালো প্রস্তুত্রি গ্রহণ করেছেন তারা। মাদ্রাসার প্রধান ভবনের সামনে বাগানের প্রাচীর ঘেঁষে তৈরি করা হয়েছে একটি গণ বেসিন। শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের হাত ধোয়ার জন্য এ বেসিনটিতে তিন ফুট পর পর স্থাপন করা হয়েছে ২৫টি ট্যাপ। ট্যাপে হাত ধোয়ার কাজে ব্যবহৃত পানি ফুলের বাগানের প্রতিটি গাছের গোড়ায় পৌঁছানোরও ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে পরিকল্পিতভাবে। সাবান, হ্যান্ড স্যানিটাইজার সহ প্রয়োজনীয় সকল সামগ্রীর পর্যাপ্ত সরবরাহ নিশ্চিত করা হয়েছে সেখানে। প্রতিটি শ্রেণিকক্ষের সামনে ইনফ্রারেড থার্মোমিটারে শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করে ভিতরে প্রবেশের ব্যবস্থা করা হয়েছে। অফিস কক্ষে প্রস্তুত রাখা হয়েছে অক্সিমিটার সহ প্রয়োজনীয় প্রাথমিক চিকিৎসা সরঞ্জাম। সকাল দশটা বাজার আগেই দেখা যায় ছোট-বড় বিভিন্ন শ্রেণির শিক্ষার্থীরা দূরত্ব বজায় রেখে সারিবদ্ধভাবে ঢুকছে শ্রেণিকক্ষে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সরকারি নির্দেশনা মেনে গতকাল ক্লাশ শুরুর প্রথম দিনে ছয়টি শ্রেণিতে শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত হয়ে পাঠ গ্রহণ করে। এখানকার প্রাথমিকে দুটি, মাধ্যমিকে তিনটি ও উচ্চ মাধ্যমিকের দুটি শ্রেণিতে ক্লাশ নেয়া হয়। ¯œাতক ও মাস্টার্স বিভাগের সকলের ক্লাশ না থাকলেও উপস্থিত হয়েছিল প্রায় সকল বিভাগের অধিকাংশ শিক্ষার্থী। ক্লাশ না তাকায় তারা নতুন রুটিন নিয়ে ফিরে যায়। সকল বিভাগের শিক্ষকরা ছিলেন শতভাগ উপস্থিত।
মহিমাগঞ্জ আলিয়া কামিল মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড. মোখলেসুর রহমান জানান, সরকারি নির্দেশনা মেনে এবং কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি পালন করে ঐতিহ্যবাহী এ প্রতিষ্ঠানে পাঠদানে আমরা নতুন করে যাত্রা শুরু করেছি। আর কোন সমস্যার সৃষ্টি না হলে গত দেড় বছরের পড়াশোনার ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালানো হবে বলে তিনি প্রত্যাশা করেন।

Check Also

সারিয়াকান্দিতে বঙ্গবন্ধু কর্ণার উদ্বোধন

সারিয়াকান্দি প্রতিনিধি: বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কর্ণার এর উদ্বোধন করা হয়েছে। রোববার দুপুরে উপজেলার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty − 5 =