সংবাদ শিরোনামঃ
প্রচ্ছদ / বগুড়ার খবর / সোনাতলায় এমপি, ইউএনও এবং এসিল্যান্ড হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ৩ অদম্য নারী

সোনাতলায় এমপি, ইউএনও এবং এসিল্যান্ড হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ৩ অদম্য নারী

ইকবাল কবির লেমনঃ এগিয়ে চলেছে নারী। সর্বত্রই আজ নারীদের জয়গান। নিজ যোগ্যতা ও মেধায় গুরুত্বপূর্ন জায়গাগুলোতে আসন করে নিচ্ছেন তাঁরা। দেখাচ্ছেন মেধা ও যোগ্যতার পরিচয়। জাতীয় সংসদসহ প্রশাসনের ভিতর বাইরে নারীদের মেধাদীপ্ত উপস্থিতি ও কর্মযজ্ঞ প্রশংসা কুড়াচ্ছে সর্বত্র। দিনে দিনে সর্বত্র নারীদের সাবলিল উপস্থিতি বাড়লেও এখনও সে সংখ্যা খুব বেশি নয়। তেমনি তিন আলোকিত নারীর বগুড়ার সোনাতলায় সাবলিল বিচরণ ও কর্মযজ্ঞ পালন আলোচনার বিষয়বস্তুতে পরিণত হয়েছে। গুণী এই তিন নারী হলেন বগুড়া-১ আসনের সংসদ সদস্য সাহাদারা মান্নান, সোনাতলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাবেরী জালাল। তাঁরা ইতোমধ্যেই সোনাতলায় ত্রিরত্ন হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন।
বগুড়া-১ আসনের সংসদ সাহাদারা মান্নান সোনাতলার কৃতি সন্তান ও সোনাতলা-সারিয়াকান্দি নির্বাচনী আসনের সংসদ সদস্য। তিনি তাঁর স্বামী প্রয়াত সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের হাত ধরে রাজনীতিতে আসেন। রাজনীতির ময়দানে তিনি সরব আছেন দীর্ঘদিন। সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে বগুড়া-১ আসন শূন্য হলে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়নে ২০২০ সালে একাদশ জাতীয় সংসদের উপ-নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হন। এর আগে তিনি বগুড়া জেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য হিসেবেও গুরু দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি সারিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড- বেগবান করার লক্ষ্যে দিনরাত মাঠে-ময়দানে চষে বেড়াচ্ছেন তিনি। প্রায় প্রতিদিন কোন না কোন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করছেন, দিচ্ছেন উজ্জীবনী বক্তব্য। সরকারের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয় ও দপ্তরে যোগাযোগ করে নিয়ে আসছেন এলাকার জন্য বিশেষ বরাদ্দ।
সোনাতলায় নারী ত্রিরত্নের অন্যতম আরেকজন হলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন। তিনি তাঁর মেধা ও যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখে পরিচালনা করছেন উপজেলা প্রশাসন। প্রশাসনের নৈমিত্তিক কাজগুলো সূচারুভাবে পালনের পাশাপাশি তিনি পরিচালনা করছেন ভ্রাম্যমান আদালত। যেখানেই সমস্যা সেখানেই সমাধান হিসেবে আবির্ভূত হচ্ছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন। একটি ইতিবাচক সোনাতলা গড়ার লক্ষ্যে সকল ক্ষেত্রে তাঁর প্রাণান্ত বিচরণ চোখে পড়ার মতো।
ত্রিরত্নের শেষ রত্নটি হলেন সোনাতলা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাবেরী জালাল। আপন মেধা ও যোগ্যতায় সোনাতলা উপজেলা ভূমি অফিসকে তিনি সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছেন। ভূমি সংক্রান্ত কাজের পাশাপাশি তাঁর অধিক্ষেত্রের অন্যান্য দায়িত্ব তিনি সততা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করে চলেছেন। প্রতিদিন সোনাতলার বিভিন্ন সরকারি কর্মকাণ্ডে তাঁর রয়েছে সরব উপস্থিতি।
সোনাতলার আলোকিত নারী ত্রি্রত্ন সম্বন্ধে সোনাতলার সমাজকর্মী এম এম মেহেরুল জানান, ‘নারীরাও যে অদম্য শক্তিতে বলিয়ান হয়ে সকল কাজে অংশগ্রহণ করতে পারেন এবং ভাল ফলাফল এনে দিতে পারেন তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত আমাদের নারী ত্রি্রত্ন। আমরা সোনাতলায় একইসঙ্গে এমন তিনজন নারী নেতৃত্ব পেয়ে গর্বিত।’
সোনাতলা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জান্নাতুল ফেরদৌসী রুম্পা নারী ত্রিরত্ন- জাতীয় সংসদ সদস্য সাহাদারা মান্নান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন ও উপজেলা সহকারী কমিশনার ( ভূমি) কাবেরী জালালের কর্মকাণ্ডের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, ‘নারীরাও যে পারেন তার জ্বলন্ত প্রমান আমাদের সোনাতলার ত্রিরত্ন। আমরা আশাকরি তাদের যোগ্য নেতৃত্বে এগিয়ে যাবে সোনাতলা তথা বাংলাদেশ।’
সোনাতলা উপজেলায় নারী নেতৃত্ব বিশেষত ত্রিরত্নের সাহসী ভূমিকার প্রশংসা করে সাধারণ জনগণ প্রত্যাশা করছেন সকল ক্ষেত্রে ইতিবাচক উন্নয়নের।

Check Also

সম্পন্নের পথে স্বপ্নের সোনাতলা প্রেসক্লাব ভবন

ইকবাল কবির লেমনঃ বগুড়া’র সোনাতলা উপজেলার সাংবাদিকদের আকাক্সিক্ষত ও স্বপ্নের প্রেসক্লাব ভবন নির্মাণ কাজ সম্পন্নের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 + 14 =